লাকুম দীনুকুম ওয়া লী ইয়া দীন

“লাকুম দীনুকুম ওয়া  লী ইয়া দীন” – তোমাদের ধর্ম তোমাদের জন্য, আমার ধর্ম আমার জন্য.

অতএব যেইসব ছাগুরা সুযোগ এর অপেক্ষায় থাকেন কিছু হলেই ধর্মকে গালিগালাজ করার, তাদেরকে বলছি… তোমার যদি কোনো ধর্ম ভালো লাগে, তুমি সেটা পালন করার জন্য উন্মুক্ত, আর যদি কোনো ধর্ম ভালো না লাগে সেটা পালন না করার জন্যও তুমি উন্মুক্ত. অতএব, কোনো বিশেষ একটি ধর্ম নিয়ে ব্যাঙ্গ করার আগে ভেবে দেখো তোমার নিজের ধর্ম তুমি নিজে ঠিকমত পালন করছ কিনা. যদি না করে থাক, তবে তা কর. আর যদি পালন করে থাক, তাহলে তোমার জানা থাকার কথা যে কোনো ধর্মই কাউকে বা কোনো কিছুকে অসম্মান অথবা ক্ষতি করতে শেখায় না. তোমার যদি ব্যাক্তিগত কোনো ক্ষোভ থেকে থাকে, তাহলে তুমি বরং একজন মানসিক চিকিত্সক এর কাছে যাও. আর যদি কোনো জাতিগত ক্ষোভ থেকে থাকে তবে তোমার উচিত হবে সেই জাতি থেকে দুরে থাকা. আর যদি কেউ তোমার কোনো ক্ষতি করে থাকে, তবে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে শাস্তির ব্যাবস্থা কর. যদি তা না পারো, তাহলে তোমার স্রষ্টার কাছে চাও যেন তিনি তার বিচার করেন. অযথাই হিংসা ছড়ানোতে কোনো কৃতিত্ব নেই. ধর্ম কে বিচার করতে হলে ধর্ম কে জানো. মানুষকে জেনে ধর্মকে বিচার করে বোকারা

ইদানিং খুবই দেখা যাচ্ছে ফেসবুকে, এবং বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইসলাম কে কটাক্ষ করে কিছু মানুষ প্রচন্ড উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলছে. আমি খুবই অবাক অবাক হয়ে লক্ষ্য করলাম, এরা সবাই বলছে এরা নাস্তিক, এবং এরা কোনো ধর্ম পালন করেনা, এবং এরা ধর্মকে ঘৃনা করে কারণ ধর্ম একটি ভুল. অথচ কার্যক্ষেত্রে এরা সবাই একযোগে ইসলাম কে কটাক্ষ করছে. এখন পর্যন্ত একটাও ওয়েব সাইট অথবা ফেসবুক পেজ পেলাম না যেখানে একযোগে হিন্দুধর্ম, খ্রিস্ট ধর্ম, বৌদ্ধধর্ম এবং ইসলাম ধর্মকে কটাক্ষ করা হচ্ছে. সমস্ত তথাকথিত ধর্মবিরোধী পেজগুলো মূলত ইসলামবিরোধী পেজ. খুবই দুঃখজনক.  এটাই আবার প্রমান করে যে পৃথিবীতে আসলে ধর্ম দুটি, একটি ইসলাম, অন্যটি কুফর.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *