পরাজিত সৈনিক ৩

পৃথিবীতে ধর্ম কতটি? অনেকের কাছে এর অনেক উত্তর. আমার চোখে ধর্ম কেবল দুটি. ইসলাম, এবং কুফর. সারাবিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ভাবে সকল অমুসলিমরা একজোট হয়ে মুসলিমদের পেটাচ্ছে. মিয়ানমার এর বৌদ্ধ গুলো নিজেদের দেশের মুসলিমদের পেটাচ্ছে, ইসরাইল এর ইহুদি গুলো ফিলিস্তিনের মুসলিমদের পেটাচ্ছে, আমেরিকার খ্রিস্টান গুলো আফগানিস্তানে পেটাচ্ছে. আর বাংলাদেশে আমরা নিজেরাই নিজেদের পেটাচ্ছি. সেদিন শুনলাম আমেরিকানরা আমাদের প্রিয় নবী মুহাম্মদ সাল্লেল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে ব্যঙ্গ করে একটি সিনেমা বানিয়েছে. ডেনমার্ক এর কাফেরগুলো তো আগেই কার্টুন একেছিল. এমনকি বাংলাদেশও থেমে থাকেনি . প্রথম আলো পত্রিকাটিও কার্টুন ছেপেছিল.

 

ভূমিকা সংক্ষেপ করে মূল গল্পে আসি. মূল গল্পটা হলো, কেন কাফেররা আমাদের পেটাবে না? কোকা কোলার বোতল হাতে, কে এফ সি’র চিকেন মুখে আমরা টেবিলে বসে দুনিয়া তোলপার করি. আমেরিকানরা কেন আমার প্রিয় নবীকে (স) নিয়ে ব্যাঙ্গ করলো তা নিয়ে দুনিয়া উদ্ধার করছি, অথচ ঠিক একই সময়ে বন্ধুর পিসি থেকে পেন ড্রাইভে করে ১০টা হলিউডি ঢিসুম ঢিসুম সিনেমা কপি করে নিচ্ছি. “মালাউন গুলো আমার দেশের সব ইলিশ মাছ খেয়ে নিলরে” বলে হা হুতাশ করি, অথচ শিলার বক্ষ দুলুনি না দেখলে ঘুম হয় না. অনেকের কাছেই শুনি ইংল্যান্ড আমেরিকাতে নাকি বাংলাদেশের চেয়ে ভালো ইসলাম আছে. এর চেয়ে হাস্যকর কথা আমার মনে হয় আর কিছু আমি শুনিনি. এটা একেবারে শয়তানের গোলামী. ব্যাপারটা অনেকটা ধুমপায়ীদের অথবা গাজাখোরদের নেশার মত. সবাই মনে মনে ঠিকই জানে যে বিড়ি সিগারেট কি ধরনের ফালতু জিনিস, অথচ যে খায়, সে কোনদিনই এটার খারাপ দিকগুলো দেখতে পায় না. উপরন্তু যে খায় না, তাকেও ডাকাডাকি করে “আরে বেট্টা, কি মজার জিনিস বেটা না খাইলে বুঝবি? আয়ে দুইটা টান দিয়া যা” লেজকাটা শিয়াল এর গল্পের মত.

 

আমাদেরকে কাফেররা পেটাচ্ছে, এবং পেটাবে. কারন আমরা আগেই হেরে বসে আছি. তাদের তৈরী করা ভোগ বিলাসের মধ্যে ডুবে থেকে কখনই আমরা তাদের পিটানি খাওয়া থেকে বাচতে পারব না. কারণ আমরা এখন ওদের গোলাম. পেপসি কিংবা সেভেন আপ না হলে আমাদের খাওয়া হয় না, ছুটির দিনে দুটো সিনেমা তো দেখা চাই-ই চাই. দুটো টাকা জমলে তো একবার ব্যাঙ্কক যেতেই হবে. সারা দুনিয়ার মুসলিমরা যেদিন এই গোলামী থেকে বের হতে পারবে, সেদিনের অপেক্ষায় রইলাম.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *