পদ্মা সেতু – বিশ্বব্যান্ক এর ঋণ পেতে সরকারের শেষ চেষ্টা

আজকের প্রথম আলো তে পড়লাম খবরটা. আমি বুঝতে পারছি না সরকার এখনো ভিক্ষাবৃত্তিক মনোভাব থেকে বেরুতে পারছে না কেন? পদ্মা সেতু করতে যা টাকা প্রয়োজন তা সরকার খুব সহজেই যোগার করতে পারে. পদ্মা সেতু পাবলিক লিমিটেড করে শেয়ার বাজারে আই পি ও ছাড়লেই বিশাল একটা অর্থসংস্থান হয়. তার সাথে বোনাস পাওনা হবে চাঙ্গা শেয়ার বাজার. আরো অর্থের প্রয়োজনে সরকার ট্রেজারী বন্ড বাজারে ছাড়তে পারে. বাকি টাকা সরকার দেশীয় দানব কোম্পানিদের কাছ থেকে প্রি- আই পি ও শেয়ার এর মাধ্যমে নিতে পারে. এতে করে লাভ হবে অনেকগুলো. প্রথমত বাড়তি কিছু ঋণ এর বোঝা দেশকে বইতে হবে না. দিতীয়ত শেয়ার বাজার চাঙ্গা হবার প্রবল সম্ভাবনা. তৃতীয়ত দেশীয় বিনিয়োগ বাড়লে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়বে. এর সাথে মংলা বন্দর পাবলিক লিমিটেড করে সরকার গুনতে পারে দিগুন মুনাফা. পদ্মা সেতু চালু হলে মংলা বন্দর চালু করা যাবে পুরোপুরি. তাতে চট্টগ্রামের উপর চাপ কমবে. ফলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ভয়াবহ যানজট ও কমে আসবে. এত কিছু সুযোগ কেন আমাদের সরকার  বিশ্বব্যান্ক  এর ঋণ এর নামে হেলায় হারাতে চাইছে তা আমার বোধগম্য নয়. কিসের আশায় বিশ্বব্যান্ক এর পদলেহন করছে ক্ষমতাধরেরা?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *